Monday , September 14 2020
শিরোনাম
Home / জাতীয় / যাকে তাকে আওয়ামী লীগের সদস্যপদ নয় , ওবায়দুল কাদের

যাকে তাকে আওয়ামী লীগের সদস্যপদ নয় , ওবায়দুল কাদের

অনলাইন ডেস্ক ॥  সামনের কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, সামনে আমাদের বিশাল কর্মযজ্ঞ। মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী, দলের জাতীয় সম্মেলন সামনে রেখে প্রস্তুতিমূলক কর্মসূচি। আপনাদের অনেক কর্মমুখী সময় অতিবাহিত করতে হবে। মনে রাখতে হবে যাকে তাকে আওয়ামী লীগের সদস্যপদ দিতে পারবো না।

বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি। বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ। প্রতিপক্ষকে দৃশ্যমান দুর্বল মনে হলেও তারা সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য দেশে-বিদেশে নানা চক্রান্ত করছে। আমরা নিজেদের টাকায় পদ্মা সেতু করছি এজন্য তাদের গায়ে জ্বালা ধরেছে। তাই অপপ্রচার চালাচ্ছে পদ্মা সেতুতে লাখো মানুষের মাথা, রক্ত লাগবে।

‘এরকম উদ্ভট তথ্য প্রচার করা হচ্ছে। কল্লা লাগবে, রক্ত দরকার, এ সমস্ত অপপ্রচার তারা করছে। এদের রাজনীতি কী নির্মম, কী নিষ্ঠুর। আন্দোলনে ব্যর্থ, নির্বাচনে ব্যর্থ হয়ে এখন শুরু করেছে অপপ্রাপচার। অপপ্রচার ছাড়া এদের কোনো পুঁজি নেই। এই অপপ্রচারে বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এই অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ফেসবুকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সোচ্চার হতে হবে।’

ভারতের হারে কাশ্মীরীদের বাঁধভাঙ্গা উদযাপন!

কাশ্মীরীদের পরাধীনতা থেকে মুক্ত হওয়ার লড়াইটা বহু পুরনো। জটিল ভু-রাজনৈতিক মারপ্যাঁচে দশকের পর দশক নিগৃহীত কাশ্মীরীরা ভৌগোলিকভাবে ভারতীয় হলেও মনেপ্রানে কখনোই ভারতকে স্বীকার করেনি। ভারত সরকারের প্রতি এই ক্ষোভ আরো স্পষ্ট হয়ে উঠে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ভারতীয় ক্রিকেট দলের যেকোন পরাজয়ে।

গতকাল বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হেরে সেমিফাইনাল থেকেই বিদায় নিয়েছে ফেবারিট ভারত। আর তাতেই ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের বিভিন্ন এলাকায় ভারতের এই পরাজয়ে বাঁধ ভাঙ্গা উল্লাস করতে দেখা গেছে স্থানীয় বাসিন্দাদের।

ম্যাচ শেষ হবার পর পরই দলে দলে মানুষ রাস্তায় নেমে আসে। নেচে-গেয়ে, আতশবাজি ফুটিয়ে উল্লাসে ফেটে পড়ে তারা। ভারতীয় আগ্রাসন বিরোধী স্লোগান আর ফ্রি-কাশ্মীর স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে শ্রীনগরের বিভিন্ন মহল্লা। কোথাও কোথাও পাকিস্তানপন্থী স্লোগানও শোনা গেছে।

কাশ্মীরীদের এমন উদযাপনের ছবি ও ভিডিও পরবর্তীতে ছড়িয়ে পরে টুইটার, ফেসবুকের মত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।

এর আগে ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে পাকিস্তানের বিপক্ষে ভারতের শোচনীয় পরাজয়ের পর কাশ্মীরে একই রকম উদযাপন তীব্র সমালোচনার জন্ম দেয়।

Check Also

las-uddhar-turag-nodi

তুরাগে নিখোঁজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার

গাজীপুরের ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজের নিখোঁজ ছাত্র রুবেল তুরাগে নিখোঁজ ছাত্রের লাশ উদ্ধারহোসেনের (২০) …